আসার সময় যেন আমাকে অনেকগুলো ইলিশ মাছ দেওয়া হয়, কৌশানী মুখোপাধ্যায়। Leave a comment

প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের কোনো ছবিতে অভিনয় করছেন কৌশানী মুখোপাধ্যায়। ছবির নাম ‘পিয়া রে’। পরিচালনা করছেন পূজন মজুমদার। সোমবার সকালে ঢাকায় পৌঁছেছেন কলকাতার এই নায়িকা। বিশ্রাম নিয়ে দুপুরের পর চাঁদপুরের উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছেন তিনি। আগামীকাল চাঁদপুরের লোকেশনে শুটিংয়ে অংশ নেবেন তিনি। এখানকার কাজ, রাজনীতি ও কলকাতার কাজ নিয়ে কথা বলেছেন কৌশানী মুখোপাধ্যায়।

কৌশানী মুখোপাধ্যায়

বাংলাদেশে এটাই প্রথম ?

না না, এর আগে ২০১৬ সালে বাংলাদেশি একটি পণ্যের বিজ্ঞাপনের শুটিং করতে এসেছিলাম। তিন দিন ছিলাম। প্রায় পাঁচ বছরের মাথায় আবার এলাম। তবে এবার প্রথম সিনেমার কাজ। অনেক দিন থেকেই বাংলাদেশের ছবিতে কাজের প্রস্তাব পাচ্ছিলাম। কিন্তু করিনি। এমন একটি কাজ দিয়েই শুরুর অপেক্ষা করছিলাম। যে কাজ, যে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের কাজ, যে পরিচালকের সঙ্গে কাজ—কাজ শুরুর আগে এগুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কলকাতা শাখার এই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের ‘ছুটি’ ও ‘লাগ ভেলকী লাগ’ নামে দুটি ছবিতে সম্প্রতি কাজ শেষ করেছি। ভালো অভিজ্ঞতা হয়েছে। তা ছাড়া বাংলাদেশের ছবিতে কাজের আগ্রহও ছিল। কারণ, আমার কাজের বাংলাদেশি দর্শকও আছেন। প্রতিদিনই বাংলাদেশি ভক্তরা প্রচুর এসএমএস, মেইল পাঠান। ছোটখাটো আমার একটি ফ্যান ক্লাবও আছে এখানে। বাংলাদেশের ছবিতে কাজ করতে তাঁদেরও দাবি ছিল।

আপনার প্রস্তুতি ?

ছবির গল্প আগেই জেনেছি। ছবির নাম দেখলেই তো বোঝা যায়, এটি রোমান্টিক ছবি। আগামী কালীপূজায় কলকাতায় আমার একটি ছবি মুক্তি পাবে। সেই ছবির শুটিং থেকেই এখানে এলাম। কিছুটা তাড়াহুড়া করেই আসা। কাল থেকে শুটিং। আজকের দিনটা পাচ্ছি। শুটিংয়ের আগে সবকিছুই বুঝে নেব।

কৌশানী মুখোপাধ্যায়

কলকাতায় ফিরবেন কবে ?

ছয়-সাত দিন পর। এখন তো পূজা শুরু হয়েছে। ওখানে কিছু বিজ্ঞাপনের শুটিং ও পূজার প্যান্ডেলের উদ্বোধন করব। পূজা শেষ হওয়ার পর শেষ লটের কাজ করতে আবার আসব বাংলাদেশে।

কোথাও ঘুরবেন না ?

আমার শুটিং চাঁদপুরে। তবে সত্যিই যদি পরিচালক ও প্রযোজক আমাকে ছুটি দেন, তাহলে আমার কিছু প্রিয় জায়গায় ঘুরতে যাব। এখানে কিছু বন্ধুবান্ধবও হয়েছে। সেবার এসে রেস্তোরাঁয় খেতে গিয়েছিলাম। যদিও এবার ডায়েটে আছি, তারপরও অল্প অল্প করে কিছু খাবার খেতে চাই। বিশেষ করে ইলিশ। এ ছাড়া শপিং করারও ইচ্ছা আছে। যদিও চাঁদপুরে শুটিং, সময় হবে কি না, জানি না। তারপরও ফেরার আগের দিন চেষ্টা করব।

ইলিশ নিয়ে যাবেন না ?

প্রযোজকের কাছে দাবি করেছি, ফেরার সময় যেন আমাকে অনেকগুলো ইলিশ মাছ দেওয়া হয় (হাসি)। আমরা তো বাজার থেকে ইলিশ কিনে খাই। কিন্তু ওই ইলিশের জন্ম তো চাঁদপুরেই। টাটকা ইলিশ পাওয়া যাবে। আমার বাবা-মাকেও ইলিশের কথা বলে এসেছি। তাঁরা অপেক্ষা করছেন।

বাংলাদেশের সিনেমা দেখা হয় ?

না, ওইভাবে আমার দেখা হয়নি। তবে ‘আগস্ট ১৯৭৫’ সিনেমাটি দেখেছি। এর বাইরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের কল্যাণে মাঝেমধ্যে বাংলাদেশের ছবির কিছু ভিডিও ফুটেজ দেখা হয়। তবে এখন যেহেতু বাংলাদেশের ছবিতে কাজ করছি, এখন তো দেখতেই হবে।

শোনা গিয়েছিল, ২০২১ সালে বনিকে বিয়ে করবেন। বছর তো চলে যাচ্ছে, খবর কী ?

না না, বিয়েটিয়ে এখন করছি না। দেরি আছে। নিজের পায়ে দাঁড়িয়েছি। এখন আমার কিছু স্বপ্ন আছে। সবারই যেমন থাকে। স্বপ্নগুলো পূরণ হলেই বিয়ের পরিকল্পনা করব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *