কারা করেছেন প্লাস্টিক সার্জারি Leave a comment

কদিন আগেই শারীরিক সৌন্দর্য নিয়ে ট্রলড হন বলিউড অভিনেত্রী কিয়ারা আদভানি। কটাক্ষ করে বলা হয়, তিনি নাকি প্লাস্টিক সার্জারি করেছেন। এতে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন কিয়ারা। তাঁর মনে হতো, যেন আসলেই প্লাস্টিক সার্জারিই করেছেন তিনি। প্লাস্টিক সার্জারি যদি কেউ করেও থাকে তাতে দোষ কোথায়? কী বলছেন তারকারা।

ইনস্টাগ্রাম

প্লাস্টিক সার্জারি করেছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া—এ কথা শুনতে শুনতে ক্লান্ত এই সাবেক বিশ্বসুন্দরী। অবশেষে তাঁর স্মৃতিকথায় এ নিয়ে মুখ খুলেছেন। জানিয়েছেন, প্লাস্টিক সার্জই নয়, নাকের পলিপ অপারেশন করিয়েছিলেন তিনি। পলিপের কারণে শ্বাস নিতে সমস্যা হতো। কিন্তু পলিপ কাটার সময় ডাক্তারের অসতর্কতায় তাঁর নাকের ‘ব্রিজ’ও কেটে যায়। প্রিয়াঙ্কার মতে, নিজের চেহারা দেখে নিজেই স্তম্ভিত হয়ে যেতেন তিনি। মনে হতো, অন্য কেউ তাঁর দিকে তাকিয়ে আছে। কয়েক বছর চলছে এমন। নাক ঠিক করতে এরপর কয়েকবারই ছুরির নিচে যেতে হয়েছে প্রিয়াঙ্কাকে।

প্লাস্টিক সার্জারি নিয়ে কোনো রাখঢাক নেই পপতারকা কার্ডি বির। নানা সময়ে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গপ্রত্যঙ্গে প্লাস্টিক সার্জারি করেছেন তিনি। শুধু তা–ই নয়, নিজেকে আবেদনময়ী হিসেবে দেখাতে অবৈধ ইনজেকশনও নিয়েছেন। এ কথা তিনি নিজেই জানিয়েছেন।আইদা মেহনাজের সৌজন্যে

তামিল অভিনেত্রী শ্রুতি হাসানের এক কথা, তাঁর নিজের চেহারা কেমন হবে, তা পছন্দ করার অধিকার একমাত্র তারই আছে। বাইরের লোকদের এ নিয়ে মন্তব্য করা উচিত না। ইনস্টাগ্রামে নিজের চেহারার প্লাস্টিক সার্জারি করা নিয়ে দীর্ঘ পোস্ট দিয়েছিলেন শ্রুতি। লিখেছেন, ‘আমি খুশি যে এটাই আমার জীবন, আমার চেহারা। এবং হ্যাঁ, আমি প্লাস্টিক সার্জারি করেছি। এর জন্য আমার কোনো লজ্জা নেই। আমি কি এর প্রচার করি? না, আমি কি এর বিরুদ্ধে? না। যেভাবে আমি জীবন যাপন করতে পছন্দ করি, এটা তাই।’

শিল্পা শেঠির নাক নিয়ে ভক্তদের আগ্রহের শেষ নেই। নাক নিয়ে প্রশ্নবাণে জর্জরিত হতেন এই অভিনয়শিল্পী। অবশেষে একদিন বলেই ফেললেন, ‘হ্যাঁ, নাকের সার্জারি করিয়েছি। তাতে হয়েছেটা কী?’ শিল্পা শেঠি কসমেটিক সার্জারি করেছেন। শুধু তা–ই নয়, তাঁর ভাষ্য, শিল্পার সরু নাকের জন্য চেহারায় ভারসাম্য এসেছে।

আনুশকা শর্মার ঠোঁট নিয়ে কটু কথা বলতে ছাড়েননি নেটিজেনরা। ভোগ সাময়িকীকে আনুশকা সাফ জানিয়েছিলেন, তিনি ‘টেম্পোরারি লিপ এনহ্যান্সমেন্ট টুল’ ব্যবহার করে আসছিলেন। এটা গোপন করারও কোনো ইচ্ছা তাঁর ছিল না। আনুশকা বলেন, ‘আমি যখন আমার ঠোঁট প্রসঙ্গে বললাম, অনেকেই আমাকে সাহসী বলেছিল। কিন্তু “বোম্বে ভেলভেট” ছবিতে আমার চরিত্রের জন্য যা দরকার ছিল, আমি কেবল সেটাই করেছিলাম। আমি মিথ্যা বলতে যাচ্ছি না এবং মিথ্যা বলিনি। আমি ভক্তদের জানাতে চাই, আমিও মানুষ এবং নিখুঁত নই।’ 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *